‘মা’ সংকটে চলচ্চিত্র শিল্প

‘আমি একটা ছবির শুটিংয়ে মায়ের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য শিল্পী না পেয়ে কয়েকবার শুটিংয়ের তারিখ পাল্টাতে হয়েছে। কারণ রেবেকা আপার ডেট মিলাতে পারছিলাম না। আমাদের চলচ্চিত্রে এখন মা সংকট চলছে। শুধু মা নয়, যেকোনো চরিত্রে অভিনয় করার জন্য একজনের বেশি শিল্পী নেই। অবস্থা এখন এমন হয়েছে যে একটি চরিত্রে অভিনয় করার মতো কাউকে না পেয়ে পরে গল্প পাল্টানোর চিন্তা করেছি।’ কথাগুলো বলছিলেন পরিচালক শাহ আলম মণ্ডল।

এমন সংকট থেকে উত্তরণে আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে এফডিসিতে শুরু হতে যাচ্ছে নতুন শিল্পী বাছাইয়ের প্রতিযোগিতা। ‘নতুন মুখের সন্ধানে ২০১৮’ শিরোনামে ওই প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে বিভিন্ন চরিত্রাভিনেতার সংকট দূর হবে বলে মনে করেন পরিচালক ও শিল্পীরা।

পরিচালক বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘এখন আমাদের চলচ্চিত্রে একজনই মা আছে তিনি হচ্ছেন রেবেকা। এ ছাড়া রেহানা জলি কাজ করতেন, কিন্তু এখন আর তিনি কাজ করতে পারছেন না, কারণ তিনি দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ। এ ছাড়া আছেন আমাদের সুচরিতা, কিন্তু তিনি গল্প পছন্দ না হলে কাজ করেন না। ববিতা করতে পারেন কিন্তু এখন আর তিনি কাজ করেন না, রোজিনা আছেন, তিনি নিজেকে মা চরিত্রে দেখতে চান না। আবার ডলি জহুর এখন টিভি পর্দায় কাজ করছেন। শর্মিলী আহমেদ ছোট পর্দায় কাজ করছেন। যে কারণে আমাদের এখন মা নিয়ে সত্যি একটা সংকট চলছে।’

চলচ্চিত্রে মা সংকট নিয়ে রেবেকা বলেন, “মা হতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু আমি চাই না একা মা হয়ে থাকতে। কারণ আমি যখন মায়ের চরিত্রে কাজ শুরু করি তখন আনোয়ারা আপার মতো অনেকেই কাজ করতেন। তাদের দেখে আমরা উৎসাহ পেতাম। কিন্তু এখন মায়ের চরিত্রে আমি একাই কাজ করছি। কিন্তু আমার যে লুক তাতে যে কারো মা হলে আমাকে ভালো লাগে না। একটু গরিব মায়ের চরিত্রে কাজ করতে চাইলে আমার সাথে সেটা যায় না। আমি মনে করি, এই সংকট নিরসনে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ বড় ভূমিকা রাখবে।”

চলচ্চিত্রে শিল্পী সংকট নিরসনে আবারও ‘নতুন মুখের সন্ধানে ২০১৮’ প্রতিযোগিতাটি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির তরফ থেকে শুরু হচ্ছে আগামী মাসের শুরুতেই। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির উদ্যোগে এবং বিএফডিসির সহযোগিতায় ‘অফট্র্যাক ইভেন্টস অ্যান্ড অ্যাডভারটাইজিং’ এবং ‘টিম ইঞ্জিন’-এর ব্যবস্থাপনায় শুরু হতে যাচ্ছে এই প্রতিযোগিতা। আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকেই শুরু হবে প্রতিযোগীদের নিবন্ধন। প্রতিযোগিতাটি রিয়েলিটি শো হিসেবে সম্প্রচার করবে এশিয়ান টিভি।

মান্না, সোহেল চৌধুরী, দিতি, অমিত হাসান, আমিন খান, মিশা সওদাগরসহ জনপ্রিয় অনেক শিল্পী চলচ্চিত্রে এসেছেন ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে।  বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে এর আগে ১৯৮৪, ১৯৮৮ ও ১৯৯০ সালে মোট তিনবার ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। – এনটিভি

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *